লিখুন
ফলো

আমাদের নতুন খবর গুলো পেতে এখনি সাইন আপ করুন

পাইলট থেকে ট্রাক ড্রাইভার-এয়ারলাইন ক্যারিয়ার কোভিড-১৯ মহামারী দ্বারা যে ভাবে ধ্বসে গেলো

এভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এবং লাভজনক কর্মজীবনের পথ এখন আর নিশ্চিত নয়। কলিস ওয়াগনার তার ব্যক্তিগত পাইলট লাইসেন্স পেয়েছে।যখন তিনি আর্থিক মন্দার সময় একজন শিল্প প্রকৌশলী হিসেবে চাকরি হারান, তিনি তার শখ পূরণের জন্য পাইলটে যোগ দেন।যেখানে সে এমব্রায়ার ই১৯০ জেট উড়িয়েছিল। যদিও তাকে শেষ দিকে ছেঁটে ফেলা হয়েছিলো। এখন, ৪৪ বছর বয়স্ক মিঃ ওয়াগনার অক্টোবরে এয়ারলাইন থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর ওহাইওর ডেয়টনের কাছে ট্রাক চালাচ্ছেন। তিনি তার এয়ারলাইন ক্যাপ বেডরুমের ড্রয়ারে সুন্দরভাবে রাখেন প্রমাণ হিসেবে যে তিনি সত্যিকারের জন্য পাইলট ছিলেন।  

এই মহামারীতে এয়ারলাইন পাইলটের মত অনেকেই তাদের পেশা পরিবর্তন করেছে। বর্তমানে, বিমান শিল্পের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এবং লাভজনক কর্মজীবনের পথ এখন আর আগের মতো নেই। তরুণ পাইলটদের ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। বয়স্ক পাইলটরা তাড়াতাড়ি অবসর নিচ্ছেন।  

ব্রিটিশ এয়ারলাইন পাইলটস অ্যাসোসিয়েশন সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। ইউনিয়নের সদস্যপদ এবং ক্যারিয়ার সার্ভিসের প্রধান ওয়েন্ডি পার্সি বলেছেন, “সম্ভবত ২৩ বছরের মধ্যে এটা আমার সবচেয়ে খারাপ দিন ছিল। 

এই ব্যথা বিশেষভাবে তীব্র যখন প্রতিবেশী এবং বন্ধুরা অন্যান্য উচ্চ বেতনে প্রযুক্তিগত কাজ করে।  

একজন অস্ট্রেলিয়ান পাইলট গ্রেগ হার্পার, যিনি ২৫ বছর ধরে কোয়ান্টাস এয়ারওয়েজ লিমিটেডে কাজ করেছিলেন। বিমান সংস্থা থেকে পালিয়ে আসার পর, তিনি এখন দুটি কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। তিনি সপ্তাহে ৭০ ঘন্টা কাজ করছেন। একটি তার স্থানীয় মুদি দোকানে এবং অন্যটি নির্মাণ সাইটে ট্রাফিক পরিচালনা।   

৫২ বছর বয়স্ক মিঃ হার্পার বলেছেন, “এটা আমার আপমানের বিষয় নয় যে আমি কেনাকাটার ঝুড়ি পরিষ্কার করি।আমি সবসময় আমার পরিবারের কথা চিন্তা করি এবং ভাবি, দিন শেষে, এটা তাদের জন্য।” 

গ্রেগ হার্পার, বাম, এবং একটি সহকর্মী জাপান থেকে অস্ট্রেলিয়া ফ্লাইট সম্পন্ন করার পর  
২০১৯ সালের নভেম্বর।  
ছবি: মাইকেল বক
 

স্থানীয় একটি সুপারমার্কেট চেইনে তার নতুন চাকুরীতে বাণিজ্যিক পাইলট গ্রেগ হার্পার। 

ছবি: গ্রেগ হার্পার 

এয়ারলাইন্স আশা করছে যে পর্যাপ্ত মানুষকে টিকা দেওয়া হলে আগামী বছরের শেষের দিকে ভ্রমণ শুরু হবে। কিন্তু তারা এখনো বিশ্বাস করে যে মহামারী এবং পরবর্তী অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের আগে চাহিদা উচ্চতায় ফিরে আসতে অনেক বছর সময় লাগতে পারে। তাদের সকল কর্মচারীকে ফিরিয়ে আনা একটি দীর্ঘ এবং ধীর প্রক্রিয়া হতে পারে।  

অবশেষে পিছিয়ে যাওয়া পাইলটদের ডাকা হবে, কিন্তু এতে মাস বা এমনকি বছর লাগতে পারে। কেউ কেউ হয়তো ভিন্ন পেশা খুঁজতে পারে। কেউ কেউ আবার অবসর নিয়েছেন। 

অন্যান্য শিল্প নিষ্ক্রিয় পাইলটদের আকর্ষণ করার চেষ্টা করছে, যদিও টা আরও অনেক কম দক্ষতার কাজ। উইসের গ্রীন বে ভিত্তিক একটি ট্রাকিং ফার্ম স্নেইডার ন্যাশনাল ইনকর্পোরেটেড সম্প্রতি ফেসবুকে প্রাক্তন পাইলটদের লক্ষ্য করে বিজ্ঞাপন পরিচালনা করেছে: “আপনি যে গাড়িই পাইলট করুন না কেন, আপনি আপনার জাহাজের ক্যাপ্টেন”। ট্রাকিং একটি স্থিতিশীল, ক্রমবর্ধমান পেশা তে যান! অস্ট্রেলিয়ায়, কিছু পশমী পাইলট খামারে কাজ করছেন, গমের মত ফসল কাটতে সাহায্য করার জন্য ভারী যন্ত্রপাতি পরিচালনা করছেন। 

অনেক পাইলট এই কাজের প্রতি আকৃষ্ট হন এবং এটিকে জীবনের সফলতার একটি উপায় হিসেবে দেখেন। যদিও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিমান ভ্রমণের রোমান্স ফিকে হয়ে গেছে, একজন পাইলট হওয়া একটি বিশেষ পেশা, যার ফলে কারো কারো পক্ষে চলে যাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। 

৬২ বছর বয়স্ক গ্যারি ক্রাসনভ, যিনি কয়েক দশক ধরে জেট উড়ছিলেন। কিন্তু যখন ডেল্টা এয়ার লাইন্স ইনকর্পোরেটেড গ্রীষ্মে তার প্রাথমিক অবসর কর্মসূচী প্রকাশ করে- সিনিয়র পাইলটদের কোভিড সংকটের মধ্যে স্বেচ্ছায় চলে যেতে রাজি করানোর একটি প্রচেষ্টার অংশ- তার বুক শক্ত হয়ে যায় এবং তার গলা বন্ধ হয়ে যায়। “আমি বললাম, “আমি বিশ্বাস ই করতে পারছি না যে এটা আমার সাথে ঘটছে।” এটা অবিশ্বাস্যভাবে অভিভূত ছিল,” তিনি বলেন। পাইলট হিসেবে অবসর নেওয়ার নয় দিন আগে, তার স্ত্রী জিজ্ঞেস করল যে সে কি শেষ পর্যন্ত স্যুটকেসটা ফেলে দিতে পারবে? তিনি বললেন, “এখনো না।” 

কঠিন বছর 

মহামারী বিমান পরিবহন শিল্পের উপর ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে। 

জেনেভা ভিত্তিক এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাকশন গ্রুপ অনুমান করছে যে এই মহামারীতে শুধুমাত্র এয়ারলাইন্স ১.৩  মিলিয়ন কর্মসংস্থান ছাঁটাই পূর্বাভাস করা হয়েছে। 

এখন পর্যন্ত কতজন পাইলট আক্রান্ত হয়েছেন তার কোন সঠিক সংখ্যা নেই, কিন্তু ইউনিয়ন কর্মকর্তা এবং বিমান পরিবহন বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে এটি ইতোমধ্যে এই পেশার সবচেয়ে বিরল এবং বড় ঘটনা। একটি ইউরোপীয় ট্রেড ইউনিয়ন অনুমান করছে যে ১৭,০০০ এর ও বেশী পাইলট শুধুমাত্র এই মহাদেশেই কাজ হারিয়েছে। 

বিশ্বব্যাপী চাকরি হারানোর মাত্রা এয়ারলাইন্স এবং পাইলট ইউনিয়নের মধ্যে যুদ্ধ রেখা পুনরায় অঙ্কন করেছে, সাধারণত বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী শ্রমিক সংগঠনগুলির মধ্যে।  

অনেক মানুষ কাজ হারাচ্ছে, শুধু বিমান চলাচলে নয়, অন্য কোথাও।ইউরোপিয়ান ককপিট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জন হর্ন বলেছেন, ৩৩টি দেশে ৪০,০ পাইলটের এমন এক পরিস্থিতিতে ইউনিয়নগুলোর তেমন কোন সুবিধা নেই যেখানে চাকরি হারানোর ঘটনা ঘটেছে, এবং এয়ারলাইন্সগুলো এর সুযোগ নিতে আগ্রহী।” 

মিঃ হর্ন বলেন কিছু ইউনিয়ন সন্দেহ করছে যে বিমান সংস্থাগুলো বেতন কমানোর জন্য অনুরোধ করছে।  

এপ্রিলে লাস ভেগাসের ম্যাককারান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ডেল্টা এয়ারলাইন্স চেক-ইন ডেস্ক। ছবি: জন লোচার/অ্যাসোসিয়েটেড প্রে

পাইলটরা কুখ্যাত বুম-টু-বাস্ট এয়ারলাইন ইন্ডাস্ট্রিতে অতীতের অনেক মন্দা পরিস্থিতির শিকার হতে বাধ্য হয়েছেন। এয়ারলাইন্স জানে যে যদি তারা পাইলটদের মন্দার মধ্যে যেতে দেয়, তাহলে তারা অভিজ্ঞ বিমান খুঁজে বের করতে ঝাঁপিয়ে পড়বে যখন পরিস্থিতি আবার ফিরে আসবে।তাই এটা এখন তরুণ পাইলটদের জন্য শেষ।  

দুই বছর আগে, ২২ বছর বয়সী ব্রিটেন জ্যাকব উডব্রিজ একটি ইউরোপীয় ডিসকাউন্ট ক্যারিয়ারে একটি পাইলট স্পট জিতেছিলেন, যা তার প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করার পর তাকে নিয়োগ দিতে সাহায্য করেছিলেন। ১৮ মাসের এই কোর্সের দাম প্রায় ১৪৫,০০০ মার্কিন ডলার। তার পিতামাতা এই প্রশিক্ষণের জন্য তাদের বাড়ি বন্ধক রাখেন। 

তিনি বলেন, “আমরা এটাকে বিনিয়োগ হিসেবে দেখেছিলাম। “যদি আমরা জানতাম, তাহলে আমি কি আমার বাবা-মাকে এটা করতে দেওয়ার কথা বিবেচনা করতাম? একেবারেই না। 

মহামারী আঘাতের পর, তার চাকরির প্রস্তাব স্থগিত করা হয় এবং পরে বাতিল করা হয়। মিঃ উডব্রিজ অন্য কিছু খুঁজতে শুরু করেন, যার মধ্যে একটি বক্স ফ্যাক্টরিতে কাজের জন্য আবেদন করা। অবশেষে তিনি একজন হিমায়িত খাদ্য বিশেষজ্ঞের ডেলিভারি ড্রাইভার হিসেবে একটি চাকরি পান। তিনি অনুমান করেন যে ফ্লাইট থেকে তার সহকর্মীদের প্রায় এক তৃতীয়াংশ এখন ডেলিভারি ড্রাইভার হিসেবে কাজ করছে। তবে সে এখনো পাইলটের ক্যারিয়ার আশা করে। 

এদিকে বয়স্ক পাইলটরা তাদের উড়ন্ত জীবনের দ্রুত অবসরের জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন।  

আরেকজন পাইলট জনাব ক্রাসনভ তাড়াতাড়ি অবসর নিয়েছেন।  তিনি ২৮ বছর বয়স থেকে বাণিজ্যিক জেট উড়িয়েছিলেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, তিনি ডেল্টায় তার কর্মসময় কমিয়েছেন। তিনি বসন্ত এবং গ্রীষ্মের বেশীরভাগ সময় অন্যান্য পাইলটদের সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করেন যে কেনার প্রস্তাব নেওয়া হবে কিনা। এমনকি তিনি বলেন যারা আর্থিকভাবে অবসর নিতে সক্ষম তাদের একটি চাকরি ছেড়ে দিতে সমস্যা হয়েছে যা তাদের পরিচয়ের অংশ হয়ে উঠেছে।  

ফ্লাইটে ককপিট পরিদর্শনের পর শ্যারন প্রেসজলার সিদ্ধান্ত নেন যে তিনি চার বছর বয়সে উড়তে চান। সে তার মাকে বলেছে সে ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট হতে চায়।  

তিনি অবশেষে বিমান বাহিনীতে যোগ দেন এবং প্রথম মহিলা হিসেবে এফ-১৬ ফাইটার জেট উড়িয়েছিলেন। ২০০৬  সালে সামরিক বাহিনী থেকে অবসর গ্রহণের পর, তিনি সাউথওয়েস্ট এয়ারলাইন্স কোম্পানিতে যোগ দেন।  

অ্যারিজোনার বাড়িতে পাইলট শ্যারন প্রেসলার ক্যারিয়ার বদলাচ্ছেন। 
ছবি: ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের জন্য কেইটলিন ও’হারা 

এই সংকটের মধ্যে, ৫৫ বছর বয়স্ক মিস প্রেসজলার একটি সাউথওয়েস্ট প্রাথমিক অবসরের প্রস্তাব গ্রহণ করেন।  তিনি একটি স্নাতকোত্তর ডিগ্রী পাওয়ার সুযোগ গ্রহণ করেন এবং একটি নতুন পেশা শুরু করেন। তিনি বলেন যে, ফাঁকা বিমানবন্দরের মাঝখানে উড়ে যাওয়া টা আগের মতো এক রকম ছিল না। তিনি বলেন, “গত কয়েক মাস কাজ করতে গিয়ে আগের মজা টা খুব মিস করেছি এবং আমি শেষ পর্যন্ত এটি মিস করবো।  

সাউথওয়েস্ট তার শেষ ফ্লাইটে তার পরিবারকে উড়িয়ে নিয়ে গিয়েছিল।মিস প্রেসলারের স্বামী, একজন সাউথওয়েস্ট ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট এবং তিনি যাত্রীদের কাছে চকলেট বার পাস করেন। 

সাউথওয়েস্ট বলছে যে প্রয়োজনের তুলনায় বেশি কর্মী আছে, যার ফলে আগামী বছর অতিরিক্ত ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ হবে। তাই প্রতিটি শ্রমিক ইউনিয়নের কাছ থেকে ১০% কাটছাঁটের দাবী জানিয়েছে এবং বলেছে যে এটি তার ইতিহাসে প্রথমবারের মত শ্রমিকদের উপর প্রভাব ফেলবে। 

গত সপ্তাহে বিমান সংস্থাটি ১,২০০ পাইলটের কাছে নোটিশ পাঠিয়েছে। 

সাউথওয়েস্ট পাইলটদের প্রতিনিধিত্বকারী ইউনিয়নের প্রধান জন দুর্বলস বলছেন যে, “এটা কোন সমঝোতা নয়, এটা আপনার মাথায় বন্দুক রেখে রাজি করানো,”    

শ্রম সম্পর্ক বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট রাসেল ম্যাকক্রেডি একটি লিখিত বিবৃতিতে বলেছেন, সাউথওয়েস্টের লক্ষ্য হচ্ছে প্রতিটি কাজ সংরক্ষণ করা, কিন্তু অতিরিক্ত কর্মীর খরচ কমানোর জন্য অস্থায়ী খরচ কমাতে হবে। 

আমেরিকান এয়ারলাইন্সের পাইলট কলিস ওয়াগনারের টুপি। 
ছবি: কলিস ওয়াগনার 

হংকং-এর ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারওয়েজ লিমিটেড পাইলটদের অক্টোবরে নতুন চুক্তিতে সম্মত হওয়ার জন্য ১৪ দিন সময় দিয়েছে। কিন্তু যারা সাত দিনের মধ্যে চুক্তিতে রাজি হয়েছেন তারা আরো ভালো চুক্তি পেয়েছে। যারা এই শর্তে সম্মত হয়নি তাদের বরখাস্ত করা হয়েছে।  যদিও বিমান সংস্থাটি বলেছে যে এই পাইলটরা আইনগতভাবে যা প্রয়োজন তা পাবেন। 

ক্যাথের সবচেয়ে বড় পাইলট ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ক্রিস বেব বলেছেন, “এই অল্পসময় রেখা তাদের পরিবারের সাথে একটি অর্থবহ আলচনার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করেছে। “এখানে যা ঘটেছে তা একতরফা এবং আরোপিত।” 

মিঃ বিবে বলেন নতুন চুক্তিতে পাইলটদের জন্য ক্ষতিপূরণ ৫৮% পর্যন্ত কমে গেছে। তিনি বলেন, এই চুক্তিতে এমন কোন ধারা নেই যাতে পাইলটরা তাদের আগের বেতনে ফিরে যেতে পারে এবং বিমান ভ্রমণের বাজার ফিরে আসে। 

এই শর্তসত্ত্বেও, ক্যাথে প্যাসিফিক একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে যে প্রায় ২,৬০০ পাইলট বা ৯৮.৫% নতুন চুক্তিতে রাজি হয়েছেন এবং পাইলটদের কম বেতন গ্রহণ করতে অনুরোধ করেছেন। এয়ারলাইনটি পরে বলেছে যে বেতন বাড়ানো কমানোর পরিমান উড়ার সময়ের উপর নির্ভর করবে, এবং বেশীরভাগ পাইলটের জন্য এই হিসাব ইউনিয়ন কর্তৃক প্রদত্ত সংখ্যার চেয়ে কম হবে, বিশেষ করে যখন উড্ডয়ন স্বাভাবিক পর্যায়ে পুনরায় শুরু হবে। 

This is a Bangla Article. Here, this article is all about the “Airlines Career” that how impacted this career by the covid.

Featured image collected from “Google”

Total
0
Shares
Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

 
Previous Article

কনস্ট্যান্টিনোপল বিজয়: মুসলিম জাহানের এক গৌরবোজ্জ্বল ঘটনা

Next Article

আইফেল টাওয়ারের ইতিকথা

 
Related Posts
আরও পড়ুন

বিশ্বব্যাপী স্মার্ট ফোনে পেমেন্ট

কোভিড-১৯ মহামারীর কারনে নগদ লেনদেন কম হয়েছে। এর ফলে স্মার্টফোন মোবাইল পেমেন্ট এ বছর বৃদ্ধি পেয়েছে। দ্যা স্ট্যাটিস্ট এ ডিজিটাল মার্কেট আউটলুক ভবিষ্যদ্বাণী করেছে যে আগামী বছরগুলোতে স্মার্টফোন মোবাইল পেমেন্টের মূল্য ক্রমাগত বাড়তে থাকবে, যেখানে ২০১৯ থেকে…
আরও পড়ুন

বেনসন অ্যান্ড হেজেস : রাজকীয় ব্রিটিশ সিগারেটের সাতকাহন [পর্ব-২]

বেনসন অ্যান্ড হেজেস  প্রথম অংশ  প্রতিষ্ঠা এবং প্রাথমিক বিকাশ এবং কি ভাবে ব্যবসার সম্প্রসারণ হলো তা নিয়ে বিস্তারিত…

আমাদের নিউজলেটার জন্য সাইন আপ করুন

আমাদের নতুন খবর গুলো পেতে এখনি সাইন আপ করুন

Sign Up for Our Newsletter